• 415

মৌমিতাকে বিএএজি’র সমর্থন

মৌমিতাকে বিএএজি’র সমর্থন

নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিল নির্বাচনে মৌমিতাকে বিএএজি’র সমর্থণ

নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিলে ২০২১ সালের ডেমোক্র্যাটিক প্রাইমারী নিবার্চনে ডিস্ট্রিক্ট ২৪ কুইন্স এর প্রার্থী বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত আমেরিকান মৌমিতা আহমেদকে সমর্থণ জানিয়েছে বাংলাদেশী আমেরিকান অ্যাডভোকেসি গ্রুপ (বিএএজি)।


আসন্ন ডেমোক্র্যাটিক প্রাইমারী নিবার্চনে মৌমিতা আহমেদকে সমর্থণ জানানোর কারণ হিসেবে সংগঠনটির চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার কামাল ভুইয়া বলেন, ডিস্ট্রিক্ট ২৪ এ যারা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন তাদের মধ্যে আমাদের কাছে সবচেয়ে যোগ্য প্রার্থী মনে হয়েছে মৌমিতা আহমেদকে। কারণ তিনি দক্ষিণ এশিয়ার আমেরিকানদের বিশেষ করে বাংলাদেশি আমেরিকানদের জন্য কল্যাণমূলক কাজে অগ্রগামী। কোভিড-১৯ এর সময় তিনি নিজের জীবন বাজি রেখে মানুষের কাছে খাবার, ঔষধ ও প্রয়োজনীয় জিনিস পত্র পৌঁছে দিয়েছেন। পথে হেঁটে হেঁটে মানুষকে সচেতন করেছেন। এছাড়াও তিনি সবসময় শ্রমজীবী মানুষের কথা বলেন। তাদের অধিকার আদায়ের কথা বলেন। এবং তাদের দুঃখে নিজেকে আবৃত করেন। দিনরাত তাদের সেবা করে যান। তবে প্রশাসনিকভাবে কাজ করার জন্যে যেহেতু নির্বাচিত প্রতিনিধির কোন বিকল্প নেই। তাই তিনি আসন্ন নির্বাচনে প্রার্থী  হয়েছেন। আমাদের আশা ও বিশ্বাস তিনি এ নির্বাচনে জয়ের মালা ছিনিয়ে আনবেন। বাংলাদেশী কমিউনিটির অধিকার আদায়ের পথ সুগম করবেন।


ইঞ্জিনিয়ার কামাল ভুইয়া মৌমিতা সম্পর্কে আরো বলেন, তিনি তার বাবা-মা এবং ভাইবোনদের সাথে আট বছর বয়সে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান। এখানে তিনি অনেকের মতো বেড়ে ওঠেছেন স্বল্প আয়ের শ্রমজীবী একটি পরিবারে। তিনি তার বাবা-মাকে দেখেছেন কীভাবে তারা ত্যাগ স্বীকার করে জীবন-যাপন করেছে এবং তাকে মানুষ করেছে। তাই তিনি বুঝবেন ত্যাগ স্বীকার করে চলা শ্রমজীবী পরিবারগুলোর মনের কথা। আর বিএএজি যেহেতু শ্রমজীবী মানুষের অধিকারের কথা বলে; তাই এ নির্বাচনে আমাদের তার পাশে থাকা।


ইঞ্জিনিয়ার কামাল ভুইয়া এক প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশী আমেরিকান অ্যাডভোকেসি গ্রুপ (বিএএজি) সম্পর্কে বলেন, এটি একটি নন-প্রফিট অর্গানাইজেশন। নিউইয়র্ক রাজ্যে বাংলাদেশীদের সহায়তা করার উদ্যোগে ২০১০ সালে একদল মেধাবী বাংলাদেশি অভিবাসীর সমন্বয়ে গঠিত হয় সংগঠনটি। বিএএজি-র উদ্দেশ্য হ'ল আমাদের সম্প্রদায়ের সব বয়সী মানুষকে ক্ষমতায়ন করা এবং স্থানীয়, রাজ্য এবং ফেডারেল সরকারগুলিতে তাদের একটি অবস্থান তৈরি করা। বিশেষত কঠোর পরিশ্রমী বাংলাদেশী আমেরিকানরা; যারা মার্কিন অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রেখে চলেছে, তাদের জীবনযাত্রার মান বাড়াতে, সমান রাজনৈতিক অধিকার এবং সামাজিক ন্যায়বিচার আদায়ে  উৎসাহিত করা।


এ উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে প্রতিষ্ঠার পর থেকে দীর্ঘ এক যুগ ধরে সংগঠনটি ছায়ার মতো অধিকার বঞ্চিত মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করছে। এছাড়া বিভিন্ন সভা, সেমিনার, অনুষ্ঠান ও নগর পরিষেবাগুলোতে নিজেদের সম্পৃক্ত করে সেবার পরিধি দিন দিন বাড়িয়ে তুলছে। বিএএজি কেবল বাংলাদেশিদেরই নয়, দক্ষিণ এশীয় এবং মুসলিম সম্প্রদায়ের সহায়তায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

আপনার মতামত লিখুন :