• 40

কেক কাটা-সংবর্ধনাসহ নানা আয়োজন

বর্ণিল আয়োজনে বাপার স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী উদযাপন

বর্ণিল আয়োজনে বাপার স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী উদযাপন

স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে বাপার সদস্যরা

বর্ণিল আয়োজনে স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করেছে বাংলাদেশি-আমেরিকান পুলিশ অ্যাসোসিয়েশনের (বাপা)। গত ২৮ মার্চ রবিবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক নগরীর কুইন্সে স্থানীয় একটি হলে প্রায় ২০০ অফিসারদের উপস্থিতিতে চলে নানা আয়োজন। 


বাংলাদশের জাতীয় সংগীত দিয়ে মনোমুগ্ধকর পর্ব শুরু হয়। এরপর বাপার সদস্যরা নিজেদের পরিচিত পর্ব ও চাকরির অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন। অনুষ্ঠানটি যৌথভাবে পরিচালনা করেন ডিটেকটিভ মাসুদ রহমান ও লেফটেন্যান্ট প্রিন্স আলম। সভাপতিত্ব করেন ক্যাপ্টেন কারাম চৌধুরী।


অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অথিতি হিসেবে যোগ দেন সাবেক নিউইয়র্ক পুলিশের কর্মকর্তা এবং ব্রুকলিন বরো প্রেসিডেন্ট এরিক অ্যাডামস। তিনি বলেন, এটা নিঃসন্দেহে গৌরবের একটি মুহূর্ত। আমি সত্যি গর্বিত যে বাপার এমন চমৎকার অনুষ্ঠানে আমাকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য। বক্তব্য শেষে এরিক অ্যাডামসকে বাপার পক্ষ থেকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়।


বাপার প্রেসিডেন্ট ও ক্যাপ্টেন কারাম চৌধুরী বলেন, আমি গর্বিত বাংলাদেশে জন্মগ্রহণ করেছি। আজ যাদের আত্মত্যাগে এই ভাষা পেয়েছি তাদের তাজা রক্তের লেখা ইতিহাস পরবর্তী প্রজন্মের কাছে পৌঁছানো আমাদের দায়িত্ব। আশা করি বাপা বিভিন্ন সামাজিক সচেতনতামূলক কাজের পাশাপাশি নিজ দেশের ভাষা, সংস্কৃতিও তুলে ধরবে।


বাপার সাবেক প্রেসিডেন্ট ও নিউইয়র্ক পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের প্রথম বাংলাদেশি লেফটেন্যান্ট কমান্ডার শামসুল হক বলেন, বাংলাদেশ কিছু ভালো করলে আমরাও গর্ব করি। আজ বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে তার প্রমাণ বিশ্বের প্রভাবশালী গণমাধ্যমের সংবাদগুলো পড়লে বুঝা যায়।


অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন-বাপার প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট সার্জেট এরশাদ সিদ্দিকী, ট্রেজারার ও পুলিশ অফিসার রাশেক মালিক, ইভেন্ট কো অর্ডিনেটর ও পুলিশ অফিসার সরদার আল মামুন, মিডিয়া লিয়াজো ও ডিটেকটিভ জামিল সারোয়ার, কো-ট্রেজারার মেহেদী মামুন অক্সিলিয়ারি লেফটেন্যান্ট সাঈদ আলী, সার্জেন্ট (আর্মস) ও পুলিশ অফিসার মাহবুবুর জুয়েল।


এছাড়াও বক্তব্য রাখেন- বাপার ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ট্রাফিক সুপারভাইজার মহিউদ্দিন আহমেদ, সাবেক সেক্রেটারি ও সার্জেন্ট কবির হোসাইন, লেফটেন্যান্ট মিলাদ খান, ট্রাস্টি বোর্ড মেম্বার ও লেফটেন্যান্ট মামুন, পুলিশ অফিসার পলাশ, ট্রাফিক সুপারভাইজার আলী চৌধুরী, পাপিয়া সারওয়ার, সোনিয়া প্রমুখ।


অনুষ্ঠানে সুবর্ণজয়ন্তী ও সদ্য পদোন্নতি পাওয়া ৪ জন সার্জেন্ট, একজন লেফটেন্যান্ট এবং নিউইয়র্ক পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে লেফটেন্যান্ট কমান্ডার শামসুল হকের পদোন্নতি উপলক্ষে কেক কাটা হয়। এছাড়া প্রথম বাংলাদেশি পুলিশ অফিসার হিসেবে বাপার সাবেক প্রেসিডেন্ট ও লেফটেন্যান্ট সুমন সাঈদকে বিদায়ী সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

আপনার মতামত লিখুন :