• 35

নিউইয়র্ক ডায়েরি

শুধু সাংস্কৃতিক নয়, সেবামূলক কাজও করে ফোবানা

শুধু সাংস্কৃতিক নয়, সেবামূলক কাজও করে ফোবানা

নিউইয়র্কের জনপ্রিয় কমিউনিটি নিউজ নেটওয়ার্ক এফএম-৭৮৬ এর নিয়মিত আয়োজন ‘নিউইয়র্ক ডায়েরি’তে অতিথি হয়ে এসেছিলেন ফোবানার সিনিয়র কো-কনভেনর মোহাম্মদ মজনু মিয়া এবং ফোবানার অন্যতম সদস্য তুহিন ইসলাম। ৩৫তম ফোবানা নিয়ে তারা কথা বলেছেন। সঙ্গে ছিলেন আরজে মোহনা


৩৪তম ফোবানা তো ভার্চুয়ালি হলো। ৩৫তম ফোবানা নিয়ে কতটা আশাবাদী?

মজনু মিয়া: আমরা চাচ্ছি গতবারের কমতিটা এবার পূরণ করবো। যেহেতু এখনো বেশ অনেক দিন বাকি আছে, আশা করছি এই সময়ের মধ্যেই আমরা করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে পারবো।


এবারের ভেন্যু কোথায়?

তুহিন ইসলাম: ৩৫তম ফোবানা খুবই সুন্দর একটা ভেন্যুতে হতে যাচ্ছে। এটি ওয়াশিংটনের ‘গ্যালট কনভেনশন সেন্টার’। এটি একটি সেভেন স্টার হোটেল। এখানে দেখার মতো অনেক কিছু আছে। অনেক বড় কনভেনশন সেন্টার। সবাই সপরিবারে এসে ফোবানার পাশাপাশি সৌন্দর্যও উপভোগ করে যেতে পারবেন।


এবারের আয়োজনে বিশেষ কী চমক থাকছে?

তুহিন ইসলাম: এবার বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০০ বছর পূর্তি এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০ বছর পালন করা হচ্ছে। তার জন্য বিশেষ আয়োজন রাখা হবে। এছাড়া তরুণদের জন্য আলাদা স্টেজের আয়োজন করার চিন্তাভাবনা রয়েছে। কারণ আমাদের পরে তো তারাই ফোবানাকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। তাদেরও দেখা উচিত কীভাবে ফোবানা করতে হয় বা ফোবানা কেমন হয়।


বাংলাদেশের বিশিষ্টজনদের আমন্ত্রণ জানানো হবে বলে শুনেছি আমরা, বিষয়টা কতদূর এগিয়েছে?

মজনু মিয়া: ইতোমধ্যে আমরা দুইজন মন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছি। আরও বেশ কয়েকজনকে আমরা আমন্ত্রণ জানাবো। তাছাড়া আমরা মুক্তিযোদ্ধাদের এবং এদেশে থেকেও যারা দেশের জন্য কাজ করছেন তাদেরকেও সম্মানিত করার পরিকল্পনা রেখেছি।


ফোবানা শুধু সাংস্কৃতিক আয়োজনই করে না, বিভিন্ন মানবিক কাজেও অংশ নেয়। তেমনই কিছু কাজের কথা জানতে চাই...

মজনু মিয়া: আমরা পুরো করোনা মহামারিতে সাধারণ মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী, পিপিই, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক বিতরণ করেছি। এছাড়া বিভিন্ন সেবামূলক কাজেও অংশ নিয়েছি।


ফোবানার পক্ষ থেকে মেইনস্ট্রিমে যুক্ত হওয়ার গুরুত্ব কতটা দেওয়া হয়?

তুহিন ইসলাম: ফোবানা উত্তর আমেরিকার বাঙালিদের সংগঠনের সংগঠক। সবাই যদি এখানে মূল ধারার রাজনীতির সাথে যুক্ত হয় তাহলে আমরা এদেশে নিজেদের জায়গা মজবুত করতে পারবো। আমাদের প্রজন্ম, পরবর্তী প্রজন্ম আরও উন্নত অবস্থান তৈরি করতে পারবে।

আপনার মতামত লিখুন :